‘থ্রিডি ফেস স্ক্যান’ প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছে বিশ্বের সবচেয়ে দামী প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপল

বাংলা নিউজ ইউকে ডটকমঃ আইফোনের জন্য সম্পূর্ণ নতুন এক ফিচার নিয়ে কাজ করছে বিশ্বের সবচেয়ে দামী প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপল। এর মাধ্যমে আইফোন ব্যবহারকারী তার মুখমন্ডল স্ক্যানের মাধ্যমে তার ফোনটি আনলক করতে পারবে। বিশ্বের নামকরা নিউজপোর্টাল ব্লুমবার্গ এমন প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

আর এটি সম্ভব হবে একটি থ্রিডি সেন্সরের মাধ্যমে। এর মাধ্যমে আইফোনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরো উন্নত হবে বলে আশাবাদি সংশ্লিষ্টরা। লগ ইন করা, পেমেন্ট যাচাই করা সহ বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে ‘থ্রিডি ফেস স্ক্যান’ এর মাধ্যমে আইফোন ব্যবহারকারী বাড়তি নিরাপত্তা পাবে।

সেন্সরের গতি এবং নির্ভুলতার বৈশিষ্ট্যটি এর প্রধান বিষয় হিসেবে নির্ধারণ করা হয়েছে। ‘ফেস স্ক্যান’ ব্যবহার করে আইফোন ব্যবহারকারী কয়েক শত মিলিসেকেন্ডে সেটি আনলক করতে পারবেন। একটি সূত্রের বরাত দিয়ে ব্লুমবার্গ এটি উল্লেখ করেছে।

ফিঙ্গারপ্রিন্ট প্রযুক্তির তুলনায় মুখের সনাক্তকরণের জন্য আরো ডেটা পয়েন্ট প্রয়োজন। আর এই জটিলতাটি বিদ্যমান টাচ আইডি সিস্টেমের চেয়ে আরও নিরাপদ করে তোলে। যা ২০১৩ সালে আইফোন ৫এস দিয়ে চালু করা হয়েছিল।

ফাংশন ডিজাইন করার সময় কোম্পানী বিভিন্ন ব্যবহারের পরিস্থিতি বিবেচনা করে। যেমন একটি টেবিলে ফোনটি ফ্লাট অবস্থায় রেখে মুখমন্ডলের মাধ্যমে আনলক করা।

অ্যাপলের আগত ‘ফেস স্ক্যান’ ফিচারটি বায়োমেট্রিক প্রযুক্তিতে প্রথম সংস্করণ নয়।  এর অাগে স্যামসাং তাদের গ্যালাক্সি নোট৭ এ ইরিস আইডেন্টিফিকেশন প্রযুক্তি সংযুক্ত করেছে। যা গত আগস্টে বাজারে এসেছে। এর মাধ্যমে ব্যবহারকারী তার চোখ স্ক্যানের মাধ্যমে ফোনটি আনলক করতে পারে।

অবশ্য আই-স্ক্যানিং ফিচারটির ভালো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।  অনেকে ফোন-মালিকদের প্রিন্ট করা ছবির চোখের মাধ্যমে এটি আনলক করা যায় বলে অভিযোগ করেছে।

অ্যাপলের এই ‘ফেস স্ক্যান’ ফিচারটি নিয়ে এখনো পরীক্ষা চালানো হচ্ছে। ব্লুমবার্গের উত্স অনুযায়ী, এই বছরের শেষের দিকে রিলিজের জন্য অ্যাপলের নতুন ফোনটিতে এটি প্রয়োগ করা অসম্ভব।  এ বিষয়টি নিয়ে অ্যাপল মুখপাত্র কোনো মন্তব্য করতে অস্বীকার করেছেন।

শেয়ার করুন