শাবি’র অভিযুক্ত শিক্ষককে শোকজ…

বাংলা নিউজ ইউকে ডটকমঃ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) নৃবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. মঞ্জুরুল হায়দার সুমনের স্ট্যাটাসের নিন্দা জানিয়েছে আওয়ামীপন্থী শিক্ষকদের একাংশ।

মঙ্গলবার বিকালে ‘মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ শিক্ষকবৃন্দের ফোরাম’র পক্ষ থেকে শাবি রেজিস্ট্রার মো. ইশফাকুল হোসেন বরাবর তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য এক স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

স্মারকলিপি পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে শাবি রেজিস্ট্রার বলেন, ‘আমরা বিষয়টি নিয়ে কাজ করেছি। অভিযুক্ত শিক্ষককে শোকজ করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।’ তবে শোকজের কোন ধরনের নোটিশ এখনও পাননি বলে জানান শিক্ষক মঞ্জুরুল হায়দার সুমন।

স্মারকলিপিতে আওয়ামীপন্থী শিক্ষকের এক অংশ দাবি করেন, শিক্ষক মঞ্জুরুল হায়দার সুমন ইচ্ছাকৃতভাবে জাতির জনক ও আগস্ট মাসকে কটাক্ষ করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন, যেটা বাংলাদেশের আইন ও সংবিধান পরিপন্থী। শোকের মাস আগস্ট সম্পর্কে এ ধরনের অপপ্রচারের তীব্র নিন্দা ও তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানান তারা।

স্মারকলিপিতে আরো উল্লেখ করেন, অভিযুক্ত শিক্ষক ২০১৩ সালে তার ফেসবুকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করেন।

নৃবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মঞ্জুরুল হায়দার সুমন বলেন, ‘ আগস্ট মাসে আমার ও আমার স্ত্রীর জন্মদিন এবং পিএইচডি থিসিস সমাপ্ত ও বার্ড জার্নালে একটা আর্টিকেল প্রকাশের কথা রয়েছে। সেই আনন্দে আমি আমার ফেসবুক ওয়ালে ব্যক্তিগত অনুভূতি থেকে একটা স্ট্যাটাস দেই।’

ক্যাম্পাস সূত্রে জানা যায়, ফেসবুক স্ট্যাটাসে লেখা ছিল- ‘দিন গুনছি… আসছে আমার আনন্দের আগস্ট।’ এ লেখাটি দেখার একদিন পর গত রবিবার রাতেই ফেসবুকে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে শাবির স্থগিত কমিটির নেতাকর্মীরা ফেসবুকে সমালোচনা করে। পরবর্তীতে সোমবার সকাল সাড়ে ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনে ঢুকে এ শিক্ষকের রুমের জানালা ও নেমপ্লেট ভাঙচুর করে।

তবে লেখাটি বির্তক সৃষ্টি করছে বলে অভিযুক্ত শিক্ষকের সহকর্মী জানালে পরবর্তীতে স্ট্যাটাসটি ডিলিট করে দেন বলে জানান এ শিক্ষক।

এদিকে, শাবির বঙ্গবন্ধু পরিষদ থেকে শিক্ষক সুমনের শাস্তি দাবি করে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আমিনুল হক ভূইয়াকে পত্র এবং শিক্ষক সমিতির জরুরি সাধারণ সভা আহ্বান করার অনুরোধ জানায়।

শেয়ার করুন