রাজ্জাক আংকেল ছিলেন আমার বাবার মতো : শাবনূর

বাংলা নিউজ ইউকে ডটকমঃ ‘রাজ্জাক আংকেল নেই? খবরটা কী সত্যি?’ বাংলাদেশের কিংবদন্তী নায়করাজ রাজ্জাকের মৃত্যুর খবর শুনে এভাবেই আতকে উঠলেন ঢাকাই ছবির জনপ্রিয় নায়িকা শাবনূর। তিনি বলেন, খবরটি শুনে এখনো বিশ্বাস করতে পারছি না। আগে যেমন উনার মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে তা গুজবে পরিণত হয়েছে এবারেও যদি এমনটা হতো, খুব ভালো হতো।

স্মৃতিচারণ করে শাবনূর বলেন, ‘তার সঙ্গে কাজ করা মানেই দারুণ এক অভিজ্ঞতা। সময়ের প্রতি তিনি ছিলেন দারুণ শৃঙ্খলাবদ্ধ। তার কাছ থেকে প্রতিনিয়ত শিখেছি। আমি কিছুতেই মানতে পারছি না তিনি আর নেই। রাজ্জাক আংকেল ছিলেন আমার বাবার মতো। শুধু আমার নয়, চলচ্চিত্রের প্রতিটি মানুষ তাকে বাবার মতো শ্রদ্ধা করতেন। তার মৃত্যুর শোক কাটিয়ে উঠতে পারবো কী আমরা? এত স্মৃতি ভুলবো কেমন করে! কতো কথা মনে পড়ছে।

তিনি আরও জানান, চলচ্চিত্রে আমি অনিয়মিত হওয়ায় অনেকেই মন খারাপ করতেন। তাদের মধ্যে রাজ্জাক আংকেল ছিলেন অন্যতম। গেল বছরের আগেরবার তার জন্মদিনে দেখা হয়েছিলো। আমরা তার বাসায় গিয়েছিলাম। কতো দুষ্টামি করেছিলাম। আমাকে দেখেই হাত বাড়িয়ে বললেন, ‘আয় মা, কাছে এসে বোস। কতদিন পর তোকে দেখলাম।’

আজ রাতেই নায়করাজের বাসায় যাবেন বলেও জানান শাবনূর।

বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তী অভিনেতা রাজ্জাক সোমবার (২১ আগস্ট) সন্ধ্যা ৬টা ১৩ মিনিটে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে মারা যান। প্রিয় এ মানুষটির মৃত্যু খবরে অনেকেই ছুটে গেছেন রাজধানীর ইউনাইটেড হাসাপালে। এর মধ্যে ছিলেন রাজ্জাকের চলচিত্রাঙ্গনের সহকর্মীরা। হাসপাতালে উপস্থিত হয়েছিলেন আলমগীর, ফেরদৌস, মুশফিকুর রহমান গুলজার, খোরশেদুল আলম খসরু, শাকিব খান, ফেরদৌস, ওমর সানী, মৌসুমী, সাইমনসহ অনেকে। ইউনাইটেড হাসপাতালে উপস্থিত অনেক চোখ ভিজে উঠেছিল কান্নায়।  ভক্ত ও তাদের বিমর্ষ উপস্থিতিতে ভারী হয়ে ওঠে হাসপাতালের পরিবেশ।

মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৫ বছর। তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, বিরোধীদলীয় নেতা ও বিএনপি চেয়ারপারসনসহ চলচ্চিত্র অঙ্গনের সহযোদ্ধারা।

শেয়ার করুন