মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের ১৯টি গ্রাম আগুনে জ্বালিয়ে দেয়ার প্রমাণ মিলেছে

বাংলা নিউজ ইউকে ডটকমঃ মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের ১৯টি গ্রাম আগুনে জ্বালিয়ে দেয়ার প্রমাণ মিলেছে স্যাটেলাইট চিত্রে পাওয়া তথ্য মতে। এছাড়া, মিয়ানমার সীমান্তে ‘স্থল মাইন’ পেঁতে রাখার খবর সত্য হলে, সংকট আরও বাড়ার শঙ্কা রয়েছে বলে জানিয়েছেন আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ এর জ্যেষ্ঠ গবেষক তেজশ্রী থাপা।

প্রসঙ্গত, গত ২৫ আগস্ট মিয়ানমারের সীমান্ত পুলিশের ২৪ টি পোষ্টে এক যোগে হামলা চালায় মিয়ানমারের বিদ্রোহী সংগঠন হিসেবে পরিচিত এআরএসএ নামের একটি গোষ্ঠি। এরপর আরো ৮ টি পোষ্টে হামলা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে মিয়ানমারের সেনা বাহিনী সন্ত্রাস বিরোধী অভিযানের নামের সাধারণ রোহিঙ্গাদের উপর দমন পীড়ন শুরু করে। এরপর থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসতে শুরু করে রোহিঙ্গারা।

এর আগে গত নভেম্বর একই ধরণের ঘটনায় বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে ৮৭ হাজারের বেশি রোহিঙ্গা। ২৫ আগস্টের পর এ পর্যন্ত কয়েক লাখ রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ হয়েছে বলে দাবি করছেন সীমান্তবর্তী মানুষ।

গত মঙ্গলবার সকালে কক্সবাজার ত্যাগের আগে তেজশ্রী থাপা বলেন, রোহিঙ্গাদের সাথে আলাপ করে তথ্য পাওয়া গেছে- এটা একটি জাতিগোষ্ঠি নিধনে গণহত্যা। নির্যাতনের সত্যতা নিশ্চিত করা না গেলেও ঘর বাড়ি জ্বালিয়ে দেয়া প্রমাণ মিলেছে স্যাটেলাইট চিত্রে।

এদিকে, মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের ওপর চালানো হত্যাযজ্ঞ, বর্বরতার খবর বিশ্বের প্রায় সব গণমাধ্যমেই আসছে। কিন্তু, মিয়ানমার কোন কথাই কানে নিচ্ছে না। এ পরিস্থিতিতে নিরপেক্ষ পর্যবেক্ষক, গণমাধ্যম, এমনকি জাতিসংঘকে রাখাইনে ঢুকতে না দেয়ায় সংকট আরো বাড়ছে। এ পরিস্থিতিতে রাখাইন রাজ্যে প্রবেশের জন্য জাতিসংঘকে অনুমতি দিতে মিয়ানমারের ওপর আন্তর্জাতিক মহলের বেশি করে চাপ দেয়া প্রয়োজন বলে মনে করেন জাতিসংঘের বাংলাদেশের আবাসিক সমন্বয়কারী রবার্ট ডি. ওয়াটকিন্স।

শেয়ার করুন