নির্যাতিত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে আশ্রয় দেয়া ও সাহায্য করা সরকারের সাংবিধানিক দায়িত্ব : মির্জা ফখরুল

বাংলা নিউজ ইউকে ডটকমঃ রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়া বাংলাদেশ সরকারের সাংবিধানিক দায়িত্ব। এমন দাবি বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের।

আজ সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিএনপি আয়োজিত এক মানববন্ধনে মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, ‘বাংলাদেশের সংবিধানে বিশ্ব মানবতা ও নির্যাতিত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর কথা পরিষ্কারভাবে বলা আছে। তাই মানবিক কারণে নির্যাতিত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে আশ্রয় দেয়া ও সাহায্য করা সরকারের সাংবিধানিক দায়িত্ব। কিন্তু সরকার এক্ষেত্রে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আমাদের নেত্রী চিকিৎসার জন্য লন্ডনে আছেন। সেখান থেকে প্রতিদিন রোহিঙ্গাদের খোঁজ খবর নিচ্ছেন তার নির্দেশেই আমরা আজ সারাদেশে মানববন্ধন করছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘১৯৭৮ সালে মিয়ানমার সরকার রোহিঙ্গাদের নির্যাতন করে বাংলাদেশে ঠেলে দিয়েছিল।তখন শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান তাদের আশ্রয় দেয়ার পাশাপাশি রোহিঙ্গা নির্যাতনের প্রতিবাদ করে ফেরত নিতে বাধ্য করেছিলেন। এরপর ১৯৯২ সালে আবারও রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে ঠেলে দিলে বেগম খালেদা জিয়ার সরকার কূটনৈতিকভাবে তাদের ফেরত নিতে মিয়ানমারকে বাধ্য করেন।’

মানববন্ধনে আরও বক্তব্য দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস-চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, শাহজাহান ওমর (বীর বিক্রম), এ জেড এম জাহিদ হোসেন, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রহুল কবির রিজভী, যুগ্ম-মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নাল আবেদীন ফারুক, আতাউর রহমান ঢালী, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানী, সহ-প্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম খান আলিম।

শেয়ার করুন