ছাত্রদল সভাপতির আত্মহত্যা

বাংলা নিউজ ইউকে রিপোর্ট : অর্থকষ্টে নিজ বাড়ির নিম গাছে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন লালমনিরহাট সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রদলের সভাপতি মনিরুজ্জামান মনির।

আজ সোমবার দুপুরে তার নিজ বাড়ি থেকে মনিরের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত মনির আদিতমারী উপজেলার সাপ্টিবাড়ি ইউনিয়নের খাতাপাড়া মাজার এলাকার কাপড় ব্যবসায়ী তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে। তিনি লালমনিরহাট সরকারি কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র ও কলেজে ছাত্রদলের সভাপতি ছিলেন।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, আজ সোমবার সকালে তার স্ত্রী কলেজে যাওয়ার পর বাড়িতে একাই ছিলেন মনির। পরে দুপুর দেড়টার দিকে তার স্ত্রী বাড়িতে এসে ভেতর থেকে গেট বন্ধ পেয়ে ডাকাডাকি শুরু করলে কোনো সাড়াশব্দ পাচ্ছিলেন না। এরপর তার ছোট ভাই সাজ্জাদ ওয়াল টপকিয়ে বাড়ির আঙ্গিনায় ঢুকে গাছের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় মনিরুজ্জামানকে দেখতে পায়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মনিরের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য লালমনিরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। মনিরের এই মৃত্যুতে তার পরিবার ও এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

জানা যায়,  একবছর আগে মনির নিজের পছন্দে বিয়ে করেন। এরপর থেকে শ্বশুর ও বাবার সঙ্গে তার সম্পর্কের অবনতি হয়। এদিকে মনিরের মা মারা যাওয়ার পর তার বাবা আরেকটি বিয়ে করে অন্যত্র চলে যান। পরবর্তীতে বাবার রেখে যাওয়া বাড়িতে স্বামী-স্ত্রী দুজনেই থেকে কলেজে পড়াশোনা করতেন। তবে কোনো উপার্জন না থাকায় চরম অর্থকষ্টে ছিল মনির।

লালমনিরহাট জেলা ছাত্রদলের সভাপতি অ্যাডভোকেট মহিউদ্দিন আহমেদ লিমন বলেন, ‘মনির দীর্ঘদিন ধরে শারীরিক ও মানসিক সমস্যায় ভুগছিলেন। তবে তার আত্মহত্যার ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক।’

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে আদিতমারী থানার ওসি হরেস্বর রায় বলেন, লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। পাশাপাশি ঘটনাটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

শেয়ার করুন