সিলেটে ১২ উপজেলায় নির্বাচন ২৯ জানুয়ারি…

সিলেট প্রতিনিধি : সিলেটে প্রথমবারের মতো উপজেলা পরিষদে সদস্য হিসেবে যুক্ত হতে যাচ্ছেন নারীরা। পরিষদের মাঝামাঝি সময়ে যুক্ত হওয়ার এ সুযোগ পাচ্ছেন তারা। জেলা নির্বাচন অফিসার ও রির্টানিং অফিসারের কার্যালয় থেকে জারি হওয়া এক গণবিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ উপ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়। ফেঞ্চুগঞ্জ ছাড়া সিলেটের বাকি ১২ উপজেলাতেই সংরক্ষিত নারী সদস্যের পদে এ উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৯ জানুয়ারি।

সিলেট জেলা নির্বাচন অফিসার ও এ নির্বাচনের রির্টানিং অফিসার মুহাম্মাদ হাসানুজ্জামান স্বাক্ষরিত গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে। উপজেলাগুলো হচ্ছে সিলেট সদর, কোম্পানীগঞ্জ, বালাগঞ্জ, ওসমানীনগর, গোয়াইনঘাট, জকিগঞ্জ, কানাইঘাট, গোলাপগঞ্জ, জৈন্তাপুর, দক্ষিণ সুরমা, বিশ্বনাথ ও বিয়ানীবাজার। মামলা সংক্রান্ত জটিলতায় নির্বাচন আটকে থাকায় ফেঞ্চুগঞ্জে উপজেলা পরিষদই গঠন হয়নি।
গত মঙ্গলবার স্বাক্ষরিত গণবিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা তফসিল অনুযায়ী নির্বাচনে রিটার্নিং অফিসার/ সহকারী রিটার্নিং অফিসারের নিকট অথবা অনলাইনে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন আগামী ১৫ জানুয়ারি। পরের দিন রিটার্নিং অফিসার কর্তৃক মনোনয়নপত্র বাছাই জন্য নির্ধারিত দিন। আর প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন হচ্ছে ২২ জানুয়ারি।

জেলা নির্বাচন অফিসের গণবিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ রয়েছে- ‘আগামী ১৫ জানুয়ারি অথবা এর আগের পূর্ববর্তী যেকোন দিনে সকাল ৯ টা থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত সিলেট জেলা নির্বাচন অফিসার এবং উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে প্রার্থীদের মনোনয়ন গ্রহণ করা হবে।’ এর আগে বিগত ২০১৪ সালে কয়েকটি ধাপে দেশের অন্যান্য উপজেলাগুলোর সাথে জেলার ১২ উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই বছর সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি প্রথম দফা উপজেলা নির্বাচনে সিলেট জেলার ৬টি উপজেলায় একযোগে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। বিশ্বনাথ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন সুহেল আহমদ, জকিগঞ্জে ইকবাল আহমদ তাপাদার, গোলাপগঞ্জে নাজমুল ইসলাম, বিশ্বনাথে সুহেল আহমদ চৌধুরী, জৈন্তাপুরে জয়নাল আবেদীন, গোয়াইনঘাটে আব্দুল হাকিম চৌধুরী ও কোম্পানীগঞ্জে আব্দুল বাছির। ভাইস চেয়ারম্যান পদে কোম্পানীগঞ্জে সমছুল হক, জকিগঞ্জে গোলাম রব্বানী চৌধুরী, গোলাপগঞ্জে নোমান উদ্দিন মুরাদ, বিশ্বনাথে আহমেদ নূর উদ্দিন, জৈন্তাপুরে মো. বশির উদ্দিন, গোয়াইনঘাটে শাহ আলম স্বপন বিজয়ী হয়েছেন। নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন কোম্পানীগঞ্জে নাসরিন জাহান, জকিগঞ্জে ইয়াহইয়া বেগম, গোলাপগঞ্জে শাহানা হোসাইন, বিশ্বনাথে বেগম স্বপ্না শাহীন, জৈন্তাপুরে জয়মতি রানী ও গোয়াইনঘাটে মোছা. আফিয়া বেগম।

দ্বিতীয় দফায় অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ২০১৪ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি বালাগঞ্জ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে বিএনপি সমর্থিত আবদাল মিয়া নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত মোস্তাকুর রহমান মফুরকে পরাজিত করেন। এ উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে খেলাফত মজলিস সমর্থিত প্রার্থী সৈয়দ আজগর আলী ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী রেফা বেগম বিজয়ী হয়েছেন। চতুর্থ উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে তৃতীয় ধাপে ২০১৪ সালের ১৫ মার্চ দক্ষিণ সুরমা উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আবু জাহিদ বিজয়ী হয়েছেন। ভাইস চেয়ারম্যান পদে আঞ্জুমানে আল ইসলাহ সমর্থিত প্রার্থী ইমাদ উদ্দিন নাসিরী ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে জামায়াত সমর্থিত শামীম আরা পান্না বিজয়ী হয়েছেন। একই বছরের ২৩ মার্চ সিলেট সদর উপজেলা ও কানাইঘাট উপজেলা পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সিলেট সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আশফাক আহমদ। এ উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে জামায়াতে ইসলামীর জৈন উদ্দিন ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী দিলারা হাসান বিজয়ী হন। কানাইঘাট উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে তৃতীয় বারের মতো বিজয়ী হন বিএনপি নেতা আশিক চৌধুরী। এ উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে জমিয়তে উলামায়ে বাংলাদেশের মাওলানা আলীম উদ্দিন ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে জামায়াতের মরিয়ম বেগম বিজয়ী হন।

২০১৪ সালের ৩১ মার্চ বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমান খান। ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম সমর্থিত প্রার্থী মুফতি শিব্বির আহমদ। নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী রোকসানা বেগম লিমা।

সিলেট জেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটানিং অফিসার মুহাম্মাদ হাসানুজ্জামান বলেন- ‘উপজেলা গুলোতে নারী ভাইস চেয়ারম্যান থাকলেও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে শূন্য আসনে উপ-নির্বাচনের মাধ্যমে নারী সদস্যরা নির্বাচন করা হবে।’ নির্বাচন কর্মকর্তা হাসানুজ্জামান জানিয়েছেন- স্থানীয় সরকার উপজেলা পরিষদ নির্বাচন বিধিমালা ২০১৩ এর বিধি ১৩(৩) অনুযায়ী নির্বাচন কমিশন উপজেলা সমূহের সংরক্ষিত নারী সদস্য পদের শূন্য আসনে উপ-নির্বাচনের জন্য নিবার্চন কমিশন কর্তৃক জারি করা গত ৮ জানুয়ারির স্মারক নির্দেশনা মতে উক্ত নির্বাচনের তফসিলের গণবিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। ইতোমধ্যে এ নির্বাচন আয়োজনের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট সকল দফতরে পত্র প্রেরণ করেছে নির্বাচন অফিস।

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি জানান, প্রথমবারের মতো উপজেলা পরিষদে সংরক্ষিত আসনে নারী সদস্য পদে উপ-নির্বাচন আগামী ২৯ জানুয়ারি। জগন্নাথপুর উপজেলা সহ জেলার ১১টি উপজেলায় ৩০ জন নারী সদস্য পদে উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে সুনামগঞ্জ জেলা নির্বাচন অফিস। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী ১৫ জানুয়ারি রির্টানিং ও সহকারি রির্টানিং অফিসার বরাবরে মনোনয়নপত্র দাখিল, ১৬ জানুয়ারি মনোনয়নপত্র বাছাই, ২২ জানুয়ারি প্রত্যাহার এবং ২৯ জানুয়ারি ভোটগ্রহণ অনুষ্টিত হবে। সুনামগঞ্জ জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সংরক্ষিত আসনে নারী সদস্য উপ-নির্বাচনের রির্টানিং কর্মকর্তা মো. আব্দুল মোতালেব জানান, সুনামগঞ্জ সদর উপরজেলায় ৩, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলায় ৩, জগন্নাথপুর উপজেলায় ৩, ছাতক উপজেলায় ৫, দোয়ারা বাজার উপজেলায় ৩, বিম্বম্ভরপুর উপজেলায় ২, তাহিরপুর উপজেলায় ২. জামালগঞ্জ উপজেলায় ২, ধর্মপাশা উপজেলায় ৩, দিরাই উপজেলায় ৩, শাল্লা উপজেলায় ১টি সংরক্ষিত আসনে নারী সদস্য পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাচন কমৃকর্তা ও সহকারি রির্টানিং কর্মকর্তা মুজিবুর রহমান জানান, প্রার্থীরা উপজেলা নির্বাচন অফিসে মনোনয়ন পত্র জমা দিতে পারবেন এবং নির্বাচন বিষয়ে যে কোন পরামর্শ জানতে পারবেন।

শেয়ার করুন