২৬ জুন গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন

উচ্চ আদালতের নির্দেশে স্থগিত এবং পরে স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার হওয়া গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটের নতুন তারিখ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। ঈদের পর ২৬ জুন ভোট নেয়ার ঘোষণা এসেছে।

ভোট নিতে নতুন করে তফসিল ঘোষণা করা হবে না। স্থগিত নির্বাচনে যারা প্রার্থী ছিলেন, তারাই থাকবেন প্রতিদ্বন্দ্বিতায়। অর্থাৎ আওয়ামী লীগের জাহাঙ্গীর আলম এবং বিএনপির হাসান উদ্দিন সরকারের মধ্যে জমজমাট একটা লড়াইয়ের জন্য আর কোনো সংশয় নেই।

আগামী মঙ্গলবার খুলনার পাশাপাশি গাজীপুরেও ভোট হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু নয় দিন আগে গত ৬ মে হাইকোর্ট ভোটে তিন মাসের স্থগিতাদেশ দেয়। তবে ১০ মে আপিল বিভাগে এই স্থগিতাদেশ তুলে নিলেও সময় নষ্ট হওয়ায় ১৫ মে ভোট করা সম্ভব হবে না বলে জানায় নির্বাচন কমিশন।

স্থগিতাদেশ উঠে যাওয়ার দিনই কমিশনের পক্ষে থেকে আজ রবিবার ভোটের নতুন তারিখ দেয়ার কথা জানানো হয়। তার সে অনুসারেই কমিশনের নতুন সিদ্ধান্ত জানানোর কথা বলেন সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটির সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ।

গত ৩১ মার্চ তফসিল ঘোষণার আগেই প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা জানিয়েছিলেন খুলনা ও গাজীপুর ছাড়া বাকি তিন মহানগর রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেটে তারা ঈদের পর ভোট নেবেন।

ফলে গাজীপুর স্থগিতাদেশ উঠে গেলেও রোজায় যে ভোট হচ্ছে না, সেটা আগে থেকেই অনুমিত ছিল।

২৬ জুন ভোটের তারিখ জানিয়ে নির্বাচন কমিশন সচিব জানান, এই নির্বাচনে নতুন করে তফসিল ঘোষণা করতে হবে না।

আর ২৪ এপ্রিল প্রচার শুরুর পর প্রার্থীরা ১২ দিন প্রচার চালিয়েছেন। রীতি অনুযায়ী প্রার্থীদেরকে প্রচার শুরুর ২১ দিন পর হয় ভোট। তার ঈদের পর ভোটের জন্য গাজীপুরের প্রার্থীরা সময় পাবেন বাকি নয় দিন। অর্থাৎ ১৮ জুন শুরু হবে গাজীপুরের স্থগিত হয়ে যাওয়া প্রচার।

গত ৬ এপ্রিল গাজীপুরের ভোট স্থগিত করে হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগের আদেশে ২৮ জুনের মধ্যে ভোটের আয়োজন করতে নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ দেয়া হয়।

শেয়ার করুন