বিতর্ক সঙ্গী করেই বিশ্বকাপে মেসিরা

বিশ্বকাপ যত এগিয়ে আসছে, ততই যেন আর্জেন্টিনা দল নিয়ে বিতর্ক বাড়ছে। প্রথমে ছিল ইসরাইলের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচ ঘিরে নাটক।

ইসরাইলের রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের কারণে রাজনৈতিক চাপের মুখে ম্যাচটি বাতিল না হলে শনিবার জেরুজালেমে খেলতে হতো মেসিদের। সেটা হয়নি, কিন্তু তার পরিবর্তে অন্য এক বিতর্ক মাথা চাড়া দিয়েছে। যার কেন্দ্রে আর্জেন্টিনার কোচ হর্হে সাম্পাওলি।

আর্জেন্টিনার কয়েকটি ওয়েবসাইটে খবর ছড়িয়েছে, সাম্পাওলি নাকি হোটেলের এক মহিলা কর্মীরে যৌন হয়রানি করেছেন। পরে ওই কর্মী নাকি পুলিশের কাছে অভিযোগ জানানোর হুমকি দিয়েছেন। যদিও এ নিয়ে আর্জেন্টিনা ফুটবল ফেডারেশনের পক্ষ থেকে কিছু জানানো হয়নি। তবে টুইটারে আর্জেন্টিনার এক সাংবাদিক মন্তব্য করেছেন, ‘অভিযোগ সত্যি হোক বা মিথ্যে, ঘটনা হল জাতীয় দলকে ঘিরে আবার সার্কাস শুরু হয়েছে।’

এরই মধ্যে আবার চোট পেয়ে ছিটকে যাওয়া ম্যানুয়েল লানজিনির বিকল্প বেছে নিয়েছেন সাম্পাওলি। সহকারীদের সঙ্গে দীর্ঘ আলোচনার পর মিডফিল্ডার এনজো পেরেজকে ডেকে নিয়েছেন আর্জেন্টিনার কোচ। রিভার প্লেটের এই সেন্ট্রাল মিডফিল্ডার ৩৫ জনের প্রাথমিক দলে থাকলেও চূড়ান্ত দলে সুযোগ না পাওয়ায় ছুটি কাটাতে চলে গিয়েছিলেন। খবর পেয়ে তার প্রাথমিক প্রতিক্রিয়া, ‘আমাকে এখন ঘুম থেকে জেগে উঠতে হবে!’

বেশ কিছুদিন ফুটবলের বাইরে থাকা পেরেজ রাশিয়া পৌঁছেই জোর দেবেন শারীরিক সক্ষমতা বাড়ানোর ওপর। ২৪ মে থেকে ছুটিতে ছিলেন পেরেজ। এই সপ্তাহ থেকে হাল্কা অনুশীলন শুরু করেছেন।

তার মন্তব্য, ‘রিভার প্লেটের কোচ আমার জন্য একটা অনুশীলন চার্ট করে দিয়েছিলেন। দিনকয়েক হল আমি কোচের সঙ্গে কাজ করছি। তবে একা একা অনুশীলন করা আর দলের সঙ্গে প্রতিযোগিতার জন্য তৈরি হওয়ার মধ্যে অনেক পার্থক্য আছে।’

বার্সেলোনায় অনুশীলন ক্যাম্প শেষ করে মেসিরা শনিবারই রাশিয়ায় উড়ে গেছেন। মস্কো থেকে বেশ কিছুটা দূরে ঘাঁটি গেড়েছেন তারা। আর্জেন্টিনার সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিরা অবশ্য ফুটবলারদের আগেই পৌঁছে গেছেন মস্কোয়। হোটেলে আর্জেন্টিনার কোনো কোনো ফুটবলার কার কার সঙ্গে একই ঘরে থাকবেন, তার তালিকাও বেরিয়েছে কয়েকটি ওয়েবসাইটে।

সেই তালিকা অনুযায়ী, মেসি ও আগুয়েরো এক ঘরে থাকবেন। হাভিয়ের মাসচেরানো ঘর ভাগ করে নেবেন লুকাস বিগলিয়ার সঙ্গে। এদিকে রাশিয়ায় পা রেখে মাসচেরানো বলেছেন, ‘আশা করছি, রাশিয়া বিশ্বকাপে আমরা সেরা ফর্মের মেসিকে দেখতে পারব। ও কী রকম খেলবে না খেলবে, তার ওপর আর্জেন্টিনার ভাগ্য অনেকটাই নির্ভর করবে। দল হিসেবে আশা করব, আমরা সতীর্থরা, মেসির পর্যায়ের ফুটবল খেলতে পারব।’ আইসল্যান্ড ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু হবে আর্জেন্টিনার।

শেয়ার করুন